টং স্টাইলে মশলা চা

টং স্টাইলে মশলা চা

বাঙালি মাত্রই চা প্রেমী। চা পছন্দ করেন না এমন বাঙালি হারিকেন জালিয়ে খুজলেও পাওয়া যাবে না। এজন্যই তো বাংলাদেশের সব এলাকার মোড়ে মোড়ে একটা চায়ের দোকান থাকবেই। আর এই সব টং ঘরে চা প্রেমীদের ভীড় লেগেই থাকে। সকাল থেকে সন্ধ্যা, কখনো বা মধ্যরাত অবধি চলে নানা রকম চায়ের ফরমায়েশ। লাল চা, দুধ চা, লেবু চা কত রকম চায়ের বাহার। তবে কিছু কিছু টং ঘরে আবার স্পেশাল মশলা চা পাওয়া যায়। ঘন দুধে কড়া লিকার, সেই সাথে সুগন্ধি মশলার অপূর্ব মনকাড়া গন্ধ। এক চুমুকেই শরীরের সব ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। বাড়তি পাওনা এই চায়ের অন্যরকম টেস্ট তো আছেই। অনেকেই বাসায় এই মশলা চা বানাবার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু টং এর চা দোকানের সেই অসাধারণ টেস্ট বাসায় আনা খুব কষ্টকর ব্যাপার। আমিও বিভিন্ন ভাবে চেষ্টা করেছিলাম। প্রথমে খুব একটা লাভ হয়নি। এরপর আমার কলেজের পাশের টং এর চা দোকানের মামার কাছ থেকে আমি তার মশলা চা বানাবার রেসিপি জেনে নেই। এই রেসিপিটিই আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব। বিশ্বাস করুন আর নাই করুন এই ভাবে বানালে একদম দোকানের মত সর ওঠা চা হবে। চলুন দেরী না করে রেসিপিটি জেনে নেই।

মশলা চা বানাবার উপকরণ

  • ঘন দুধ ১ কাপ
  • পানি ১/২ কাপ
  • আদা বাটা ১/২ চা চামচ
  • এলাচ একটি
  • দারচিনি ১” এক টুকরো
  • লবঙ্গ ১টি
  • তেজপাতা অর্ধেকটি
  • চিনি ১ চা চামচ
  • চা পাতা ১ চা চামচ
  • বেকারীর মিষ্টি বিস্কিট ১টি

প্রণালী

প্রথমে বিস্কিট গুড়া করে নিবেন।

এবার হাড়িতে ঘ্ন দুধ আর পানি নিন। এতে বিস্কিটের গুড়া দিয়ে দিন। সাথে দিন চিনি। মশলা চা একটু মিষ্টি হয়। তবে আপনি মিষ্টি কম পছন্দ করলে চিনি কম দিতে পারেন। এবার দুধ ফুটে উঠা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। দুধ ফুটে উঠলে এতে আদা বাটা দিন। সেই সাথে দিয়ে দিন এলাচ, দারচিনি, লবঙ্গ আর তেজপাতা। বেশ খানিক্ষণ পর্যন্ত ফুটান। দেখবেন কিছুক্ষণ পর খুব সুন্দর মশলার গন্ধ বের হচ্ছে।

দুধ থেকে মশলার গন্ধ বের হলে এতে চা দিয়ে দিন। তিন মিনিট ফুটান। দেখবেন খুব সুন্দর গন্ধ বের হয়েছে। সেই সাথে চায়ের একটা সুন্দর রংও দেখতে পাবেন। তখন বুঝবেন চা রেডি। এরপর কাপে চা ছেকে নিন। রেডি মজাদার টং স্টাইলে মশলা চা।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *