চুলের যত্নে টকদই

চুলের যত্নে টকদই

ঘন কালো চুলের প্রশংসায় কত কবি কত কবিতাই না লিখেছেন। সুন্দর, মসৃণ, ঘন, কালো যেকারোরই ভাল লাগে। কিন্তু এই সুন্দর চুলের যদি যত্ন না করা হয় তাহলে ধীরে ধীরে এর সৌন্দর্য হারিয়ে যায়। চুলের যত্নের জন্য বাজারে নানারকম কেমিকেলযুক্ত প্রোডাক্ট তো পাওয়া যায়। কিন্তু ঐসব কড়া কেমিকেল চুলের জন্য আসলেই কতটা উপকারী তা আসলেই ভাবনার বিষয়। আর সেই সাথে দামের ধাক্কা তো আছেই। তাই আসুন চুলের যত্ন নিতে এসব ক্ষতিকর কেমিকেল ব্যবহার না করে বেশী বেশী প্রাকৃতিক উপাদানের দিকে ঝুকে পড়ি। আর এসব প্রাকৃতিক উপকরণের মধ্যে অনেক বেশী উপকারী একটি উপাদান হল টকদই। আপনি অনেক ভাবেই চুলের যত্নে টকদই ব্যবহার করতে পারেন। আসুন আজ সেরকম কিছু প্যাকের কথা জেনে নেই।

চুলের যত্নে টকদই, অলিভ অয়েল ও মধু

এটি আমার সবচেয়ে পছন্দের প্যাক। এই প্যাকটি একদিন ব্যবহারেই চুল অনেক ঝরঝরে মসৃণ হয়ে যায়। আধা কাপ টকদই নিন। এর সাথে মিশান দুই টেবিল চামচ অলিভ অয়েল ও এক চা চামচ মধু। সবকটি উপকরণ খুব ভালভাবে মিশিয়ে নিন। এবার এই প্যাকটি মাথার চুলের গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত লাগিয়ে রাখুন এক ঘন্টা। এরপর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। ইচ্ছা না হলে কন্ডিশনার ব্যবহার করার দরকার নেই। আমি করি না। চুল শুকিয়ে গেলে দেখুন কেমন মসৃণ লাগে।

চুলের যত্নে টকদই, ডিম, নারকেল তেল

এই প্যাকটি চুলের প্রোটিন প্যাক হিসেবে কাজ করবে। কারণ এই প্যাকটিতে ডিম ব্যবহার করা হয়েছে। আর আমরা সকলেই জানি প্রোটিনের জন্য ডিমের জুড়ি নেই। এই প্যাকের জন্য লাগবে একটি ডিম, ১/৪ কাপ টকদই আর দুই টেবিল চামচ নারকেল তেল। সব উপকরণ একসাথে ভাল করে ফেটিয়ে নিন। এবার এটি মাথায় মেখে রাখুন ২০ থেকে ২৫ মিনিট। এর থেকে বেশী সময় মাথায় প্যাকটি লাগিয়ে রাখবেন না। তাহলে ডিম চুলের সাথে খুব শক্ত ভাবে এটে যাবে। পরে ছাড়ানো কষ্ট হয়ে যাবে। এরপর ভাল ভাবে চুল ধুয়ে শ্যাম্পু করে ফেলুন। সপ্তাহে একদিন এই প্যাকটি ব্যবহার করুন।

চুলের যত্নে টকদই, ক্যাস্টর অয়েল, নারকেল তেল আর মধু

সব উপকরণ দুই টেবিল চামচ করে নিয়ে ভাল করে ফেটিয়ে নিন। এবার চুলে লাগিয়ে রাখুন এক ঘন্টা। ভাল করে শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার লাগিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুইদিন ব্যবহার করতে পারেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *